সর্বশেষ:

ধুনট-শেরপুরে 'সিগন্যাল' পেয়ে এগিয়ে সাবেক এমপি সিরাজ »

ধুনট-শেরপুরে ‘সিগন্যাল’ পেয়ে এগিয়ে সাবেক এমপি সিরাজ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বগুড়ায় বিএনপির মনোনয়ন নিয়ে কথা বলেছেন নেতাকর্মীরা। তাদের মতে, যারা লন্ডনের সিগন্যাল পাবেন কিংবা পেয়েছেন, মনোনয়ন দৌড়ে তারাই এগিয়ে থাকবেন। বগুড়ায় বিএনপির শীর্ষ পর্যায়ের এক নেতা বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে বগুড়া থেকে যারা লন্ডন সফরে গিয়ে হাইকমান্ডের সঙ্গে সাক্ষাতের অনুমতি পেয়েছেন, তারাই মনোনয়ন প্রাপ্তিতে এগিয়ে থাকবেন। তাদের কথায় লন্ডনে হাইকমান্ডের সিগন্যাল বলতে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সম্মতির বিষয়টিই স্পষ্ট হয়।

জানা যায়, সাম্প্রতিক সময়ে মনোনয়নপ্রত্যাশী অনেকেই লন্ডন সফর করেছেন; কিন্তু সবাই তারেক রহমানের সাক্ষাৎ পাননি। সেদিক থেকে বগুড়া-৫ (শেরপুর-ধুনট) আসনে ১৯৯১ থেকে ২০০১ পর্যন্ত টানা তিনবার নির্বাচিত সাবেক সাংসদ গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ হয়তো সৌভাগ্যবান। কারণ এতদিন দলের ভেতরে সংস্কারপন্থি হিসেবে পরিচিত হয়েও প্রায় দশ বছর পর গত জুলাইয়ের শেষ দিকে তিনি লন্ডনে গিয়ে তারেক রহমানের সাক্ষাৎ পেয়েছেন। হাইকমান্ডের নির্দেশেই দেশে ফিরে বগুড়ায় দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সমাবেশে অংশ নিয়ে আগামীতে আন্দোলন ও নির্বাচনের জন্য সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিতে নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

দলীয় সূত্রগুলো জানায়, শুধু সংস্কারপন্থি হিসেবে চিহ্নিত হওয়ার কারণে গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ ২০০৮ সালের নির্বাচনে বগুড়া-৫ (শেরপুর-ধুনট) আসনে মনোনয়ন বঞ্চিত হন। একই কারণে বগুড়ায় বিএনপির কোনো কমিটিতেও তাকে আর রাখা হয়নি। এমনকি এক বছর আগে এই আসনে বিএনপির সম্ভাব্য অর্ধডজন প্রার্থীর দৌড়ঝাঁপ লক্ষ্য করা গেলেও তার তেমন উপস্থিতি ছিল না। অনুসারীরা বলছেন, গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ এতদিন তারেক রহমানের সঙ্গে সাক্ষাতের চেষ্টা করে যাচ্ছিলেন।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে সাক্ষাতের কথা স্বীকার করেছেন গোলাম সিরাজ। সমকালকে তিনি বলেন, লন্ডনে বেড়াতে গিয়েছিলাম। সেখানেই ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের সঙ্গে সাক্ষাৎ হয়। ২০০৭ সালে সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় গণমাধ্যমে ‘কেবলা পরিবর্তনের’ কথা বলে দলের ভেতরে-বাইরে সমালোচনার মুখে পড়া সাবেক এ সাংসদ বলেন, এক-এগারোতে কী প্রেক্ষাপট ছিল, সেটা তিনি (তারেক রহমান) নিজেও জানেন। সে সময় আমার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ দাঁড় করানোর চেষ্টা হয়েছিল। অনেক খুঁজেও সেটা না পাওয়ায় ছেলেকে গ্রেফতার করা হয়। এগুলো তার (তারেক রহমান) জানা আছে। সমকাল

নিউজটি পড়েছেন 5227 জন

আর্কাইভস