সর্বশেষ:

ধুনটে চেয়ারম্যানের ভাইসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা »

ধুনটে চেয়ারম্যানের ভাইসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা

নৌকার প্রার্থীর বিপক্ষে ভোট করায় স্বতন্ত্র প্রার্থীর ৩ সমর্থককে মারধরের অভিযোগে ধুনট উপজেলা চেয়ারম্যানের ছোট ভাই আব্দুল কাদির জিলানীসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। সোমবার রাতে চিকাশী ইউনিয়নের সোনারগাঁ গ্রামের চাঁন মিয়ার ছেলে সাদাদ হোসেন শাহীন নামে এক ব্যক্তি বাদী হয়ে ধুনট থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

মামলা ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত ২৮ নভেম্বর চিকাশী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বগুড়া জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ম সম্পাদক নাজমুল কাদিন শিপন এবং চিকাশী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আলেফ বাদশা আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন। 
কিন্তু আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন (নৌকা) পান নাজমুল কাদির শিপন। এ কারণে আলেফ বাদশা মনোনয়ন না পেয়ে তার মেয়ের জামাই আরিফুর রহমানকে নৌকার বিপক্ষে ভোটে দাঁড় করিয়ে দেন। নির্বাচনে বিএনপির স্বতন্ত্র প্রার্থী জাকির হোসেন জুয়েল চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।  এদিকে নির্বাচনে নিজের মেয়ের জামাই পরাজিত হওয়ায় চিকাশী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সদ্য বহিস্কৃত সভাপতি অলেফ বাদশাহ ক্ষিপ্ত হয়ে গত ৩০ নভেম্বর ধুনট উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হাই খোকনের ছোট ভাই শিক্ষক আল মামুনকে মারধর করে আহত করে। এ ঘটনার পরপরই নৌকার বিপক্ষে অবস্থান নেয়ার অভিযোগে আলেফ বাদশাহকে চিকাশী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতির পদ থেকে বহিস্কার করা হয়। 

এঘটনায় গত ৩০ নভেম্বর ধুনট উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হাই খোকন বাদী হয়ে চিকাশী ইউনিয়নের সদ্য বহিস্কৃত সভাপতি আলেফ বাদশা সহ ২৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।

এদিকে নিজের ভাইকে মারধর করায় ধুনট উপজেলা চেয়ারম্যানের আরেক ভাই আব্দুল কাদির জিলানী ক্ষিপ্ত হয়ে গত ৩ ডিসেম্বর সকালে আলেফ বাদশার শ্যালক সাদাদ হোসেন  শাহীনের মিল ঘর ভাঙচুর করে। 

এঘটনায় শাহীন বাদী হয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে ওই দিনই পুলিশ ঘটনাস্থনে তদন্তে যায়। ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা জানান, চিকাশী ইউনিয়নে নির্বাচন পরবর্তী বিছিন্ন কিছু ঘটনায় থানায় পাল্টাপাল্টি মামলা দায়ের হয়েছে। এসব ঘটনা তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। বিডি প্রতিদিন

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
নিউজটি পড়েছেন 1820 জন

আর্কাইভস