সর্বশেষ:

ধুনটে হ্রাস পেয়েছে ইটের মাপ, ‘প্রতারিত’ গ্রাহক »

ধুনটে হ্রাস পেয়েছে ইটের মাপ, ‘প্রতারিত’ গ্রাহক
বগুড়ার ধুনটসহ কয়েকটি ইটভাটায় ইটের পরিমাপ হ্রাস করার অভিযোগ উঠেছে। এর ফলে দামে যেমন গ্রাহককে ঠকানো হচ্ছে, তেমনি নির্মাণ কাজেও বেশি সামগ্রীর প্রয়োজন হওয়ায় খরচ বেড়ে যাচ্ছে।

সাধারণভাবে ইটের পরিমাপ হয় লম্বায় ১০ ইঞ্চি, প্রস্থ ৫ ইঞ্চি এবং পুরুত্ব ৩ ইঞ্চি। কিন্তু স্থানীয় অধিকাংশ ইটভাটার দেখা গেছে লম্বা সাড়ে ৯ ইঞ্চি, প্রস্থ পৌনে ৫ ইঞ্চি এবং পুরুত্ব ৩ ইঞ্চি। বড় ক্রেতারা বাইরের জেলা থেকে ইট কিনে আনতে পারলেও অল্প পরিমাণ ইটের ক্রেতারা বাধ্য হয়ে ছোট মাপের ইট কিনতে বাধ্য হচ্ছে।

বগুড়ার ধুনট উপজেলার বড়বিলার ‘আপেল নিশাত বিক্স’ ইটভাটার মালিক আব্দুল কায়উম টগর জানান, তিনি প্রতি হাজার ইট ১০ হাজার টাকায় করে বিক্রি করছেন। কয়লার দাম বেশি হওয়ায় এবার ইটের দাম বেশি বলে তিনি জানান।

তিনি বলেন, গত বছর কয়লার দাম প্রতি টন ছিল সাড়ে ৮ হাজার থেকে ১০ হাজার টাকা। এবার সেই কয়লার দাম বেড়ে ১৯ হাজার থেকে ২২ হাজার টাকা হয়েছে।

ইটের মাপ হ্রাস পাওয়ার বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, “ইট তৈরির ফর্মার কারণে এটা হতে পারে।”

দাম বৃদ্ধির বিষয়ে বলেন, “যারা কয়লা আমদানি করেন তারাই কয়লার দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন। তাই ইটের দামও বেড়ে গেছে।”

ধুনটের ‘এম ভি সি’ ইটভাটায় দেখা গেছে, সেখানে ইটের পরিমাপও কম, দামও গত বছরের চেয়ে এক হাজার থেকে দেড় হাজার টাকা বেশি।

এই ভাটার মালিক সোহরাব হোসেন বলেন, “আগের ফর্মায় ইট তৈরি করছি। কেউ কোনো কথা এখনও বলেনি।”

তিনি বলেন, “আমাদের ইট ভাটা মালিক সমিতির সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সবই নিয়ন্ত্রণ করেন। গ্রাহকরা বাধ্য হয়ে এ সব কম মাপের ইট বেশি দামে কিনলেও ক্ষুব্ধ তারা। অনেকেই বলছে দিন দিন ইটের দাম বেড়ে চললেও ইটের মাপ কম দেওয়া হচ্ছে। গ্রামের সাধারণ মানুষ অল্প ইট তাই কম মাপের ইট বেমি দামে কিনতে বাধ্য হচ্ছে।”

ধুনট উপজেলার চিথুলিয়া গ্রামের রাজ মিস্ত্রি বিপ্লব বলেন, ইটের পরিমাপ নির্ধারিত আছে লম্বায় ১০ ইঞ্চি, প্রশস্থ ৫ ইঞ্চি এবং পুরু ৩ ইঞ্চি। কিন্তু স্থানীয়ভাবে বেশিরভাগ ইটভাটার ইট লম্বা সাড়ে ৯ ইঞ্চি, প্রস্থ পৌনে ৫ ইঞ্চি এবং পুরুত্ব পৌনে ৩ ইঞ্চি।

তিনি বলেন, ইটের পরিমাপ কম হওয়ায় নির্মাণ কাজে ইটের সংখ্যা যেমন বেশি লাগে, তেমনি সিমেন্ট ও বালির পরিমাণও বেশি লাগবে। এতে গ্রাহকরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

বগুড়া ইটভাটা মালিক সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. বাদল ইটের সঠিক পরিমাপ ১০ ইঞ্চি লম্বা, ৫ ইঞ্চি প্রস্থ এবং ৩ ইঞ্চি পুরুত্ব বলে উল্লেখ করে বলেন, “কিছু অসৎ ভাটা মালিক পরিমাপ কম দেওয়ার সাথে জড়িত।” 

সংগঠনের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ জানান, জেলায় ইটভাটার সংখ্যা দুই শতাধিক।

তবে ইটের পরিমাপ বিষয়ে জানার ‘এখতিয়ার সাংবাদিকদের নেই’ এবং তিনি এর কারণ জানাতে বাধ্য নন বলে মনে করেন।  

বগুড়া জেলা প্রশাসক মো. জিয়াউল হক বলেন, এমন অনিয়ম হলে তা সাধারণ মানুষ ক্ষতির সম্মুখীন হবে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সবার সাথে কথা বলে অনিয়ম প্রমাণিত হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিডিনিউজ২৪

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
নিউজটি পড়েছেন 862 জন

আর্কাইভস