সর্বশেষ:

ধুনটে বিএনপির ব্যাপক শোডাউন: নতুন নেতৃত্বে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা »

ধুনটে বিএনপির ব্যাপক শোডাউন: নতুন নেতৃত্বে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা

বগুড়ার ধুনট উপজেলা এক সময় বিএনপির ঘাঁটি হিসেবে পরিচিতি পেলেও বর্তমানে আওয়ামী লীগের ঘাঁটিতে পরিণত হয়েছে। বিএনপি তাদের পুরনো রাজনৈতিক ঐহিত্য ধরে রাখার চেষ্টা করেছে অনেকবার। কিন্তু মামলায় জর্জরিত হয়ে এবং পূর্ণাঙ্গ কমিটি না থাকায় ধীরে ধীরে নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়ে ধুনট উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক কার্যক্রম।

২০১৮ সালের পর থেকে প্রকাশ্যে সভা-সমাবেশও করতে দেখা যায়নি বিএনপির নেতাকর্মীদের। তাই দীর্ঘ ৪ বছর পর নতুন নেতৃত্বে আবারও ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে ধুনট উপজেলা বিএনপির। গত ১৮ ফেব্রম্নয়ারি বগুড়া জেলা বিএনপির আহ্বায়ক রেজাউল করিম বাদশা ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলামের স্বাক্ষরিত দলীয়পত্রে উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক মুক্তিযোদ্ধা হাতেমুজ্জামান তালুকদার ও ১নং সদস্য তৌহিদুল আলম মামুনকে সাংগঠনিক ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে। কমিটির আহ্বায়ক আব্দুল মতিন মন্ডলের মৃতু্যজনিত কারণে দল পুনর্গঠনের লক্ষ্যে হাতেমুজ্জামান তালুকদার ও তৌহিদুল আলম মামুনকে সাংগঠনিক ক্ষমতা প্রদান করা হয়। তাদের নেতৃত্বেই ধুনট উপজেলার ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড কমিটি পুনর্গঠিত হতে যাচ্ছে।

এদিকে নতুন নেতৃত্ব পেয়েই ২৫ ফেব্রম্নয়ারি বিকালে উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা হাতেমুজ্জামান তালুকদার ও ১নং সদস্য তৌহিদুল আলম মামুনের নেতৃত্বে শতাধিক নেতাকর্মী ধুনট বাজারে আনন্দ শোভাযাত্রা বের করে। পরে অস্থায়ী দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

হাতেমুজ্জামান তালুকদারের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা তৌহিদুল আলম মামুন, বিএনপি নেতা আব্দুল খালেক মন্ডল, মাহবুব হোসেন চঞ্চল, সাবেক পৌর প্রশাসক আকতার আলম সেলিম, আবুল মনছুর পাশা প্রমুখ। এ ব্যাপারে উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য একেএম তৌহিদুল আলম মামুন বলেন, ২০০৮ সালের নির্বাচনের পর থেকে বিএনপির নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে ৪৩টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। তারপরও নেতাকর্মীরা ঝুঁকি নিয়ে দলের কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন। তাই নতুন নেতৃত্বে বিএনপিকে আবারও ঢেলে সাজানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। যাযাদি

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
নিউজটি পড়েছেন 1004 জন

আর্কাইভস