সর্বশেষ:

ধুনটে বিয়ে মেনে না নেয়ায় গলায় ফাঁস দিয়ে শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা »

ধুনটে বিয়ে মেনে না নেয়ায় গলায় ফাঁস দিয়ে শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় ওমর ফারুক (১৭) নামে এক শিক্ষার্থী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। নিজের পছন্দের মেয়েকে বিয়ে করলে মা তা মেনে না নেয়ায় আত্মহত্যা করে সে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যার দিকে উপজেলার সরুগ্রাম এলাকায় বাড়ির পাশের কাঁঠাল গাছের ডাল থেকে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়। গলায় স্ত্রীর ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে সে।

ওমর ফারুক উপজেলার সরুগ্রামের মোফাজ্জল হোসেনের ছেলে। সে স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীতে পড়ত।

থানা পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ওমর ফারুকের বাবা জীবিকার তাগিদে প্রায় পাঁচ বছর ধরে সৌদি আরবে অবস্থান করছেন। সে তার মা ফুলমনিকে নিয়ে বাড়িতে বসবাস করত। এ অবস্থায় পাশ্ববর্তী ফকিরপাড়া গ্রামের এক স্কুল পড়ুয়া মেয়ের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে তার।

গত ১৮ মার্চ সে তার প্রেমিকাকে বিয়ে করে বাড়িতে নিয়ে আসে। কিন্তু নববধূকে মেনে নেয়নি ফারুকের মা। মঙ্গলবার বিকেলের দিকে নববধূর সামনেই ওমর ফারুককে তার মা শাসন করে। এরই জেরে সন্ধ্যা ৭টার দিকে বাড়ির পাশে কাঁঠাল গাছে ওমর ফারুকের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পায় তার স্বজনেরা।

সংবাদ পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করেছে। এ ঘটনায় থানায় একটি অস্বাভাবিক মৃত্যু (ইউডি) মামলা রেকর্ড হয়েছে।

নিহতের মা ফুলমনি জানান, পরিবারের অমতে বিয়ে করায় তাকে একটু শাসন করা হয়েছে। এতেই ক্ষুব্ধ হয়ে সে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

ধুনট থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মতিউর রহমান বলেন, প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে, পারিবারিক কলহের কারণে ওমর ফারুক আত্মহত্যা করেছে। সুরতহাল রিপোর্ট তৈরির পর ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে (শজিমেক) পাঠানো হয়েছে। আইনী প্রক্রিয়া শেষে স্বজনদের কাছে লাশ বুঝিয়ে দেয়া হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
নিউজটি পড়েছেন 1642 জন

আর্কাইভস