সর্বশেষ:

ধুনটে যমুনার তীর সংরক্ষণ প্রকল্পের ১৮০ মিটার নদীতে বিলীন »

ধুনটে যমুনার তীর সংরক্ষণ প্রকল্পের ১৮০ মিটার নদীতে বিলীন

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় যমুনা নদীর তীর সংরক্ষণ প্রকল্পের বিভিন্ন স্থানে ভাঙন দেখা দিয়েছে। পানির অতিরিক্ত স্রোতে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে আজ মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত প্রায় ১৮০ মিটার জায়গা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। এ কারণে হুমকির মুখে পড়েছে নদীর ডান তীর সংরক্ষণ প্রকল্প ও বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ।

বগুড়া পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ভান্ডারবাড়ি ইউনিয়নে প্রতিবছর ভাঙনে যমুনার তীরবর্তী গ্রামগুলোর বসতভিটা, আবাদি জমি, রাস্তাঘাট, প্রতিষ্ঠানসহ অনেক অবকাঠামো নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায়। ভাঙনরোধে ২০১১ সালে প্রায় ৩৪ কোটি টাকা ব্যয়ে পুকুরিয়া গ্রাম থেকে বরইতলী গ্রাম পর্যন্ত ৩ কিলোমিটার এলাকায় তীর সংরক্ষণ প্রকল্পের কাজ করে পাউবো। পাঁচ বছর আগে প্রকল্পটির কাজ শেষ হয়। তবে গত সপ্তাহ থেকে নদীর পানি বাড়তে থাকায় সেখানে ভাঙন শুরু হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে সরেজমিনে দেখা যায়, ভাঙনরোধে নদীর তীর ঢালু করে তাতে জিও চট বিছিয়ে ইট ও সিমেন্টের তৈরি সিসি ব্লক দেওয়া হয়েছে। প্রকল্প রক্ষায় বাঁধের পাশ দিয়ে বাঁশের তৈরি দেয়াল দেওয়া হয়। তবে পানির স্রোতে সবই নদীতে বিলীন হচ্ছে।

ভূতবাড়ি গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক নুর মোহাম্মদ বলেন, ‘পাঁচবার নদীভাঙনে শিকার হয়ে ঘরবাড়ি জমিজমা হারিয়ে ভূতবাড়ির বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের পাশে আশ্রয় নিয়েছি। গত কদিন ধরে যেভাবে ভাঙন শুরু হয়েছে, তাতে বাড়িঘর আবারও হারিয়ে খোলা আকাশের নিচে থাকতে হবে।’

স্থানীয় বাসিন্দা আবদুর রাজ্জাক বলেন, নদীভাঙনের শিকার হয়ে সব হারিয়ে প্রায় ৩০০ পরিবার যমুনার ডান তীর সংরক্ষণ এলাকায় বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধে আশ্রয় নিয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে তাঁর বাড়ির সামনে ভাঙন দেখা দিয়েছে। দ্রুত ভাঙনরোধের ব্যবস্থা না করা হলে তাঁর ঘরবাড়ি ভাঙনের কবলে পড়ে যমুনা নদীতে বিলীন হয়ে যাবে।

উপজেলার ভান্ডারবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বেলাল হোসেন বলেন, ভাঙনরোধে ব্যবস্থা নিতে পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাদের অনুরোধ করা হয়েছে।

বগুড়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মাহবুবুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, জরুরিভাবে নদীভাঙনরোধে এ মুহূর্তে কোনো অর্থ বরাদ্দ নেই। অর্থ বরাদ্দ পেলে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। প্রথম আলো

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
নিউজটি পড়েছেন 425 জন

আর্কাইভস